হ্যাকিং কি? হ্যাকিং এর ইতিহাস এবং বিস্তার আলোচনা! | Factarticle.Com            
Factarticle.Com
hacker best pic fct

হ্যাকিং কি? হ্যাকিং এর ইতিহাস এবং বিস্তার আলোচনা!

What is hacking? Discuss the history and spread of hacking!

hacker fct

হ্যাকিং কি? কম্পিউটার ক্রাইম কি? হ্যাকার কাকে বলে? এসব বিষয় আমরা অনেকেই কিছু না কিছু জানি, কিন্তু আমাদের এসব বিষয়ে একটু জানার আগ্রহ প্রকাশ করি তাই আজকে হ্যাকিং সম্পর্কে বিস্তার আলোচনা করার চেষ্টা করবো।  

কম্পিউটার ও ইন্টারনেট এর বহুমুখী ব্যবহারের কার্যক্রমকে ব্যাঘাত ঘটাতে বিভিন্ন ধরণের কম্পিউটার অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে। আজকে আমরা কম্পিউটার ক্রাইম সম্পর্কে আলোচনা করব।

হ্যাকিং এর ইতিহাস? 

১৯৫০ থেকে ১৯৬০ এর দশকে এম আই টি (M.I.T) ইঞ্জিনিয়ার রা প্রথম হ্যাকিং শব্দ টির প্রচলন শুরু করেন। এটা মুলত শুরু করা হয় Mainframe Computer এর কোডিং ভাঙ্গার জন্য এবং শুধুই মজা করার উদ্দেশ্যে। পরের দশকে কিছু নীতিহীন হ্যাকার অনৈতিক উদ্দেশ্যে মোবাইল ফোন হ্যাক শুরু করে ! আগে তো কম্পিউটারের এত প্রচলন ছিলনা তখন হ্যাকার রা ফোন হ্যাকিং করত। ফোন হ্যকার দের বলা হত Phreaker এবং এ প্রক্রিয়া কে বলা হ্য Phreaking । এরা বিভিন্ন টেলিকমনিকেশন সিস্টেমকে হ্যাক করে নিজের প্রয়োজনে ব্যাবহার করত।

হ্যাকিং কি? 

প্রোগ্রাম রচনা ও প্রয়োগের মাধ্যমে কোন কম্পিউটার সিস্টেম বাঁ নেটওয়ার্ক ক্ষতি করাকেই মূলত হাকিং বলে। হ্যাকিং হচ্ছে কারো কম্পিউটারে বা কম্পিউটেরের নেটওয়ার্কে অবৈধ অনুপ্রবেশ। ইন্টারনেট এর ব্যাপক প্রচলনের জন্য তথ্য আদান-প্রদান বেড়েছে বহুগুন তেমনি তথ্য চুরি, তথ্য বিকৃতি করার ঘটনার নজিরও কম নয়। আর এই কাজটি যারা করছে তাদেরই মুলত হ্যাকার বলা হয়।

হ্যাকার কাকে বলে?

যে ব্যাক্তি হ্যাকিং practice করে তাকেই হ্যাকার বলে।

হ্যাকার কয় প্রকার ?

হ্যাকারদেরকে সাধারনত hat( টুপি) দিয়ে চিহ্নিত করা হয়ে থাকে। মানুষের মধ্যে উত্তম, মধ্যম এবং হীন এই তিন প্রকৃতির মানুষ রয়েছে। হ্যাকারদের মধ্যেও কার্যপ্রনালী বিবেচনা করে তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে।

White Hat Hacker

এই হ্যাকাররা সাধারণত ডেটা বাঁ সিস্টেমের ক্ষতি করে না তবে কাজের ক্ষেত্রে ভীষণ দক্ষ হয়ে থাকে।

Black Hat Hacker

এই হ্যাকাররা মূলত বিভিন্ন বাক্তি বাঁ প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও আর্থিক তথ্য হাতিয়ে নিয়ে খুবই ক্ষতিসাধন করে থাকে।

Gray Hat Hacker:

এই হ্যাকাররা মূলত নেটওয়ার্ক এর দুর্বলতা নিয়ে কাজ করে।এরা নেটওয়ার্ক এর দুর্বলতা খুঁজে বার করে এবং ওনারকে অবহিত করে এবং দুর্বল দিক গুলো ঠিক করে মূলত এভাবেই এরা অর্থ-উপার্জন করে থাকে।

hacker

ফ্রেকিং (Phreaking)

ফোন হ্যাকারদের মূলত ফ্রেকিং বলা হয়ে থাকে। একসময় কম্পিউটার সিস্টেম প্রচলিত ছিল না তখন হ্যাকাররা নানাভাবে ফোনে হ্যাকিং পরিচালিত করতো। ফোন সিস্টেমকে হ্যাক করে অসৎ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করার প্রক্রিয়াকেই মূলত ফ্রেকিং বলে।

স্পুফিং অ্যান্ড স্নিফিং (Spoofing and Sniffing)

স্পুফড সাইট হলো একটা বোকা বানানোর ফাঁদ।এই সাইট গুলো মূলত আসল সাইট এর মতো দেখতে কিন্তু আসল সাইট নয়।এরা মূলত ভুয়া ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে আর্থিক তথ্যাদি হাতিয়ে নিয়ে থাকে।

ডেনিয়াল অব সার্ভিস অ্যাটাক (Denial Of Service Attacks)

এটি এমন একটি উদ্বেগ যার মাধ্যমে একটি কম্পিউটার বাঁ নেটওয়ার্ক রিসোর্সকে এর বৈধ ব্যবহারকারিদের বিভিন্ন ধরণের সেবা থেকে বঞ্চিত করে রাখা হয়। ফলে ইমেইল,ওয়েবসাইট,বাঙ্ককিং সেবাসমুহে অ্যাক্সেস করা যায় না।

স্পাম্মিং (Spamming)

অনাকাঙ্ক্ষিত বাল্ক মেসেজ কাউকে ব্যাপকভাবে প্রেরন করাকেই মূলত স্পাম্পিং বলা হয়।এসব মেসেজ প্রায় সময় ওই বাণিজ্যিক ধাচের হয়ে থাকে এবং অনেক সময় আইডেনটি জালিয়াতির জন্যেও প্রেরন করা হয়ে থাকে।

সাইবার অ্যাটাক (Cyber Attack)

সাইবার অপরাধ বা কম্পিউটার অপরাধ এমন একটি অপরাধ যা কম্পিউটার এবং কম্পিউটার নেটওয়ার্কের সাথে সম্পর্কিত। সাইবার সন্ত্রাসী হলো সেই ব্যক্তি যে সরকার বা প্রশাসনকে একটি কম্পিউটার ভিত্তিক আক্রমণ করে তাঁদের রাজনৈতিক বা সামাজিক উদ্দেশ্য জানতে ভয় প্রদর্শন বা বাধ্য করে।

সাইবার থেফট( Cybertheft)

অসৎ উদ্দেশ্যে কম্পিউটার ব্যবহার করে কারো তথ্য হাতিয়ে নেয়া , বাঁ বাক্তিগত কিছু চুরি করাকেই মূলত সাইবার থেফট বলা হয়ে থাকে।

সফটওয়্যার থেফট (Software Theft)

সফটওয়্যার থেফট বলতে যে সফটওয়্যার টা বানিয়েছে তার অনুমতি ছাড়াই কপি করে তার নিজের নামে চালিয়ে দেয়াই হচ্ছে সফটওয়্যার পাইরেসি।

hacker

 

হার্ডওয়্যার থেফট (Hardware Theft)

মাইক্রো-কম্পিউটার এর বিভিন্ন যন্ত্রাংশ মূল্যবান,কিন্তু এটা সহজে বহনযোগ্য বিধায় কেউ যদি চুরি করে কম্পিউটার এর তৈরিকৃত প্রোগ্রাম এবং মূল্যবান ডেটা হাতিয়ে নেয় সেটাকেই মূলত সফটওয়্যার থেফট বলা হয়ে থাকে।

ডাঁটা থেফট (Data Theft)

ডাঁটা থেফট বলতে বুজায় কোন প্রতিষ্ঠান বাঁ ব্যাংক এর প্রয়োজনীয় তথ্য হাতিয়ে নেয়া। এরা মূলত অন্যের তথ্য হাতিয়ে নিয়ে ফাঁস করে দিয়ে ওনারের ক্ষতিসাধন করে থাকে।

প্লেজিয়ারিজম( Plagiarism)

অন্যের লেখা চুরি করে নিজের নামে চালিয়ে দেওয়া বা প্রকাশ করাকে বলা হয় প্লেজিয়ারিজম বলে। কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কোন সাহিত্য, গবেষণা, কোন সম্পাদনাকর্ম হুবহু নকল বা আংশিক পরিবর্তন করে নিজের নামে চালিয়ে দেওয়াকেও প্লেজিয়ারিজম বলা হয়।

ফিশিং( Phishing)

মাছ ধরার মতো টোপ দিয়ে মানুষকে বোকা বানিয়ে বিভিন্ন ধরণের ওয়েবসাইট এ নিয়ে গিয়ে বাক্তিগত তথ্য জানার চেষ্টা করে এবং অনুরোধ করতে থাকে,যখন কেউ তার তথ্য দিয়ে ফেলে তখন তারা এই হ্যাকাররা তাদের অনেক ক্ষতিসাধন করে থাকে।

ভিশিং (Vishing)

ফোন বাঁ অডিও ব্যবহার করে কাউকে ফিশিং করাকেই ভিশিং বলে।এরা মূলত চালাকি করে কাউকে মোবাইলে লটারিতে জেতার কথা বলে ব্যাংক এর ভেরিফিকেশন কোড চায় ,যখন কেউ দেয় , তখন এই হ্যাকাররা তাদের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে টাকা হাতিয়ে থাকে।

পোস্টটি ভালো ভালো লাগলে Factarticle এর সঙ্গেই থাকবেন।

BY:Factarticle.com

Shahin Hasan

Add comment

Ads

Follow us

Don't be shy, get in touch. We love meeting interesting people and making new friends.

Most popular

Most discussed

shares