Online Earning

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে আয় করুন খুব সহজেই – 2020

আজকে আমরা আলোচনা করবো, আপনি কিভাবে মোবাইল দিয়ে অনলাইনে আয় করবেন? তাহলে চলুন মূল আলোচনা শুরু করা যাক। সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ুন তাহলে অনলাইনে আয় করার বেসিক একটা ধারণা চলে আসবে।

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে টাকা আয় করুন খুব সহজে

তথ্যপ্রযুক্তি জীবনের প্রতিটি পর্যায়ে ওতপ্রোত ভাবে জড়িয়ে আছে। ইন্টারনেটের কল্যাণকর সহজলভ্যতায় মানুষ এখন ঘরে বসে বিশ্ব দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। ব্যবসা বাণিজ্য চিকিৎসা চাকরি পড়ালেখা সব কিছুই এখন এই ইন্টারনেটকেন্দ্রিক।

অনলাইনে আয়ের জন্য দক্ষতা থাকা অত্যন্ত জরুরি। আর অনলাইন কাজের ব্যাপ্তি যেভাবে বিস্তৃত হয়ে উঠছে তাতে সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে নিজেকে তৈরি করে নিতে না পারলে অভিজ্ঞ ও দক্ষদের ভিড়ে হারিয়ে যাওয়ার সম্ভবনাটাই বেশি।

তাই সময়োপযোগী কাজের দক্ষতা অর্জন ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে নিজেকে তৈরি করে নিতে পারলেই লাভবান হওয়া যাবে। ভুলে গেলে চলবে না, ইন্টারনেটে একদিকে যেমন কাজের কোনো অভাব নেই, অপরদিকে কাজ করার যোগ্য ব্যক্তিরও চাহিদার শেষ নেই।

আপনি যখনই গুগোল এ সার্চ করবেন মোবাইল দিয়ে অনলাইন থেকে ইনকাম দেখবেন হাজার হাজার রেজাল্ট আপনার সামনে হাজির হয়ে গেছে, কেউ আপনাকে কমিটমেন্ট দিচ্ছে যে এদিকে আসুন।

কনটেন্ট-টির বিষয়বস্তু

এরকম হাজার হাজার অফার আছে, এখন আপনাকে বিবেচনা করতে হবে যে কোনটি সঠিক আর কোনটি বেঠিক, কোনটি আসলে শিখিয়ে যাচ্ছে আর কোনটি প্রতারক চক্র, আপনি যদি কখনো প্রতারক চক্রের মধ্যে পড়ে যান তাহলে অবশ্যই আপনার কিছু সময়, অর্থ এবং আপনার পরিশ্রম বৃথা যেতে পারে।

আবার অনলাইনে আয় করার নানা সুযোগ থাকলেও কিছু কিছু ক্ষেত্রে প্রতারণার মুখে পড়তে হতে পারে, তাই সতর্ক থাকতে হবে সর্বত্র। কিছু অনলাইন প্ল্যাটফর্ম, ওয়েবসাইট ও রিসোর্স আছে, যা কাজে লাগিয়ে অনলাইনে আয় করতে পারবেন।

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে আয়

মোবাইল দিয়ে ইনকাম করার সহজ উপায় – 

YouTube হতে টাকা উপার্জন

অনলাইন থেকে টাকা উপার্জনের সবচেয়ে সহজ পথ হচ্ছে YouTube. এখান থেকে যে কোন বয়সের লোক খুবই সহজে টাকা উপার্জন করতে পারেন। ইন্টারনেট বিশ্বের জনপ্রিয় ১০ ওয়েবসাইটের মধ্যে YouTube হচ্ছে একটি।

আপনার যদি একটি স্মার্টফোন থাকে তাহলে আপনি আপনার স্মার্ট ফোনটি ব্যবহার করে ভিডিও তৈরি করতে পারেন এবং সেই ভিডিও গুলো ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন। আপনি যদি ইউটিউবে ভালো মানের ভিডিও আপলোড করতে পারেন তাহলে অল্প দিনে আপনি ভালো পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ইউটিউব থেকে আয় করতে চাইলে এই কনটেন্টি পড়ুন- কিভাবে ইউটিউব থেকে আয় করা যায় ,দুর্দান্ত টিপস! ২০২০

শুরু করুন ব্লগিং

আপনার যদি একটা ভাল মানের স্মার্টফোন থাকে তাহলে আপনি ইচ্ছা করলে মোবাইল দিয়ে ব্লগিং করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। কিন্তু সেক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই পরিশ্রম বেশি করতে হবে।

আপনি গুগল ব্লগারে কিংবা ওয়ার্ডপ্রেসে বিনা মূল্যে একটি ব্লগ তৈরী করে নিতে পারেন। এখন ব্লগ তৈরী করে থেমে থাকলে হবে না। আপনার যে বিষয়ে পরিপূর্ণ জ্ঞান আছে, আপনি সে বিষয় নিয়ে লিখে যান।

এ ক্ষেত্রে হয়তো আপনি প্রথম ২-৩ মাস একটু কষ্ট করতে হবে। তাই বলে আপনি নিরাশ হয়ে থেমে থাকবেন না। এভাবেই মোবাইল দিয়ে অনলাইনে আয় করুন।

ব্লগিং থেকে Adsense আয়

Adsense হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপনের (Advertisement) Program. এটি গুগল কর্তৃপক্ষ সয়ং নিজে পরিচালনা করছে। আপনি যদি আপনার ব্লগটিকে ভাল মানের Platform এ নিয়ে যেতে পারেন।

আপনার ব্লগে প্রচুর পরিমানে ভিজিটর থাকে তাহলে Adsense থেকে আপনি হাজার হাজার টাকা উপার্জন করতে পারবেন। এ পদ্ধতীতে আপনার ব্লগে Adsense এর বিজ্ঞাপন ব্যবহার করে ক্লিক প্রতি ডলার আয় করতে পারবেন। অনলাইনে আয় করার সহজ উপায় এভাবে কাজ করলে আপনি সফলতা পাবেন।

আরও দেখুন- আপনি আপনার সোফায় বসে অর্থ উপার্জন করুন ৯ টা ওয়েবসাইট থেকে, না দেখলে মিস করবেন-কিল্ক করুন 

আমরা অনেকেই মনে করি, Adsense Approv করাটা অনেক কঠিন কাজ। কিন্তু আমি বলছি মোটেও কঠিন কাজ নয়। আপনি যদি মানসম্মত ২৫-৩০ টি ইউনিক কনটেন্ট লিখতে পারেন তাহলে নিঃসন্দেহে Adsense Approv হয়ে যাবে। এখান থেকে আপনি দীর্ঘ দিন যাবত টাকা উপার্জন করে যেতে পারবেন।

ফেসবুক থেকে আয় করুন 

অনলাইনে আয় করার সহজ উপায় ফেসবুক সুযোগ করে দিয়েছে। নয়টি ভাষায় বিশ্বের ৩২টি দেশে এই সুবিধা চালু করেছে।

আপনি চাইলে আপনার মোবাইল ফোন ইউজ করে ফেসবুক থেকে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

যদি আপনি চান ফেসবুক থেকে মোবাইলে টাকা ইনকাম করবেন তাহলে আপনি আমাদের এই কন্টেন্টটি পড়ে নিতে পারেন- কিভাবে ফেসবুক থেকে আয় করবেন?দেখে নিন!

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে আয়

অনলাইনে মোবাইলের মাধ্যমে আয় ২০২০ 

১. ফেসবুক এফ-কমার্স

মোবাইলে একটি ফেসবুকে পেজ খুলেই বাংলাদেশে ই-কমার্স ব্যবসা করা যায়। যেটা ইদানীং সবাই ফেসবুকে দেখছেন। যারা এভাবে কাজ করছেন, তাদের মাসিক আয় হচ্ছে ১৫,০০০ টাকা – ৩০,০০০ টাকা পর্যন্ত। আবার অনেকেরই ভালো ইনভেস্ট থাকার কারণে অনলাইনে আয় করার সহজ উপায় আরও বেশি ইনকাম হচ্ছে। সেটা ১ লাখ থেকে ২ লাখও হতে পারে।

  • প্রোডাক্টঃ শাড়ি,মেয়েদের ড্রেস, গিফট আইটেম ইত্যাদি।
  • অভিজ্ঞতাঃ টার্গেট মার্কেটিং।
২. টি-শার্ট অ্যাফিলিয়েশন – online jobs

বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক জনপ্রিয় ইনকাম সোর্স হচ্ছে টি-শার্ট অ্যাফিলিয়েশন। এ অ্যাফিলিয়েশনের জন্য শুধুমাত্র ফেসবুককেই ব্যবহার করা হয়। এভাবে মাসে ১৫,০০০ টাকা থেকে ১ লাখ টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

  • প্রোডাক্ট: টি-শার্ট,শার্ট,মগ, হুডি ইত্যাদি
  • অভিজ্ঞতাঃ নিশ সিলেক্ট, অডিয়েন্স টার্গেট, মার্কেটিং ইত্যাদি

আরও দেখুনকিভাবে উবারে ড্রাইভার হিসেবে জয়েন করবেন এবং মাসে হাজার হাজার টাকা আয় করবেন!–কিল্ক করুন- 

৩. হোস্টিং অ্যাফিলিয়েশন

হোস্টিং অ্যাফিলিয়েশনের জন্য শুধুমাত্র ফেসবুক মার্কেটিং করে ইনকাম করা যায়। ইনকাম কয়টা সেল করেছেন, সেই অনুযায়ী বাড়তে থাকে। ইনকাম মাসে ৫০০০ টাকা – ৮০,০০০ টাকা হতে পারে। এটা মোবাইল দিয়ে সম্ভব কারন আপনি কোম্পানি চালাচ্ছেন না,শুধু তাদের হয়ে সম্ভাব্য কাস্টমার খুঁজে দিচ্ছেন, তার বিনিময়ে আপনি আয় করছেন।

  • প্রোডাক্ট: বিভিন্ন কোম্পানির হোস্টিং
  • অভিজ্ঞতাঃ কনটেন্ট ডেভেলপ, সম্ভাব্য কাস্টমার খুঁজে বের করা, মার্কেটিং ইত্যাদি
৪. লোকাল ব্যবসা

লোকাল যে কোন ব্যবসার প্রফিট বৃদ্ধির জন্য এখন ফেসবুক মার্কেটিংকে সবাই ব্যবহার করছে। রেস্টুরেন্ট ব্যবসা, ফ্যাশন হাউস থেকে শুরু করে আরও অন্যান্য ব্যবসাতেও ফেসবুকে মার্কেটিং করেই ইনকাম বৃদ্ধি করা যায়।

  • প্রোডাক্ট: সার্ভিস, ট্রেনিং, প্রোডাক্ট ইত্যাদি
  • অভিজ্ঞতাঃ ইনভেস্ট, প্রোডাক্ট বাছাই, দক্ষ ব্যক্তি, মার্কেটিং ইত্যাদি
৫. লোকাল চাকরি

যে কোনো ব্যবসাতে যেহেতু ফেসবুক মার্কেটিং এখন বড় একটি ফ্যাক্ট। সুতরাং, প্রতিটা প্রতিষ্ঠানে এ কাজটি করার জন্য ফেসবুক মার্কেটিংয়ের এক্সপার্ট লোকজনের চাকরির সুযোগ তৈরি হয়েছে। বাংলাদেশের বাজারে এখন পর্যন্ত ১৫ হাজার টাকা থেকে ৬০ হাজার টাকা বেতনে এ সেক্টরে চাকরিতে নিচ্ছে।

  • প্রোডাক্ট: সার্ভিস, ট্রেনিং, প্রোডাক্ট ইত্যাদি
  • অভিজ্ঞতাঃ রিয়েল কাজের অভিজ্ঞতা, ব্যবসাতে প্রফিট বৃদ্ধি করা ইত্যাদি
৬. ফাইভারের গিগ সেল

ফাইভারে গিগের যত বেশি প্রমোশন চালাবেন, ততই গিগ সেল বৃদ্ধি পাবে। কিন্তু ফেসবুক প্রমোশন চালাতেও সঠিক জ্ঞান থাকতে হবে। সঠিক জ্ঞান ছাড়া গিগ প্রমোশন চালালে ফাইভারে ইনকাম বাড়বে, উল্টো ফাইভার অ্যাকাউন্টটাই নষ্ট হয়ে যাবে।

প্রোডাক্ট: ফাইভার গিগ

অনলাইনে টাইপ করে আয় করুন ডাটা এন্ট্রি করে মাসে $500-$600 ডলার আয় করুন

মোবাইলে বিজ্ঞাপন দেখে আয়

অনলাইনে বিজ্ঞাপন দেখে যে কত টাকা আয় করা সম্ভব তা সম্পর্কে অনেকেরই বিশদ কোনো ধারণা নেই। ইন্টারনেটে বিজ্ঞাপনদাতার সংখ্যা এতই বেশি যা অবাক করার মতো। বর্তমানে ইন্টারনেটে বিজ্ঞাপন দেয় না এমন কোম্পানির সংখ্যা নেই বললেই চলে।

এ কোম্পানিগুলো বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে মানুষের দোরগোড়ায় তাদের ও কার্যক্রমের তথ্য পৌঁছে দিতে চায়, আর তার জন্য কোম্পানিগুলো অর্থ ব্যয় করে প্রচুর।

ইন্টারনেটে এমন বিভিন্ন ওয়েবসাইট আছে যারা এসব কোম্পানির কাছ থেকে তাদের বিজ্ঞাপন জনসাধারণকে দেখানোর চুক্তিবদ্ধ হয় এবং পরে তারা ওইসব বিজ্ঞাপন দেখার জন্য তাদের লভ্যাংশ থেকে বিজ্ঞাপনটি যে দেখছে তাকেও কিছু অর্থ প্রদান করে থাকে। তবে কাজের আগে নিশ্চিত হতে হবে সেটি প্রকৃত সাইট কিনা।

অনেক সময় বন্ধুতে রেফারেন্স দিয়ে আয় করতে পারেন। ClixSense, NeoBxu, PrizeRebel, Paidverts এই ওয়েবসাইটগুলো থেকে প্রাথমিকভাবে কাজ শুরু করলে ভালো ফলাফল পাবেন।

মোবাইল দিয়ে অনলাইনে আয়

মোবাইলে বিকাশ থেকে আয় 

অনেক সময় বন্ধুতে রেফারেন্স দিয়ে আয় করতে পারেন। বিকাশ বা নগদ থেকে প্রাথমিকভাবে কাজ শুরু করলে ভালো ফলাফল পাবেন।

বিভিন্ন অ্যাপস থেকে আয়

আপনি চাইলে বিভিন্ন এপস থেকে  বিজ্ঞাপনে ক্লিক করেও মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। কিন্তু এটা ক্ষণস্থায়ী।

যদি আমাকে কেউ বলেন ভাই,আমি কিভাবে ক্যারিয়ারের জন্য অনলাইনে দক্ষতা অর্জন বা কি কাজ করবো ? সল্প জ্ঞান নিয়ে উত্তরে আমি যা বলবো আপনি এমন কিছু শুরু করুন যেটা লিগ্যাল।

আপনি সর্বদাই সৎপথে আয় করার চেষ্টা করুন কিন্তু এখানে থাকতে হবে ধৈর্য। আপনি শুরু করুন সফলতা পাবেন অবশ্যই। এমনও সময় আসবে আপনার একটি টাকাও ইনকাম হচ্ছে না,আপনি ধৈর্য ধরুন এবং কাজ করে যান। ১০০% সফলতা পাবেন।

আপনি চাইলে নিচের এসব টপিক এর উপর ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারেন– সম্পূর্ণ পড়ে নিন-

কাজ শুরু করুন, আশা করি,আপনি সফল হবেন। মোবাইল দিয়ে অনলাইনে আয় এই পোস্টটি ভালো লাগলে আপনি সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিবেন এবং (Factarticle)  আমাদের সঙ্গেই থাকবেন। আপনার ভালো লাগ্লেই বা উপকৃত হলেই আমরা সার্থক।

সৌজন্যেঃ Factarticle.com

Comments

Tags
Back to top button
Close
Close