tea bag
Health

টি ব্যাগ যখন মরণব্যাধি! ১টি ব্যাগই ১১ বিলিয়ন মাইক্রোপ্লাস্টিক ও ৩ বিলিয়ন ন্যানোপ্লাস্টিক বিষাক্ত কণা ছড়াচ্ছে

টি ব্যাগ ও টি ব্যাগের অপকারিতা Tea Bag

Tea bag when death! 1 bag contains 11 billion microplastic and 3 billion nanoplastic toxins

টি ব্যাগ যখন মরণব্যাধি! ১টি ব্যাগই ১১ বিলিয়ন মাইক্রোপ্লাস্টিক ও ৩ বিলিয়ন ন্যানোপ্লাস্টিক বিষাক্ত কণা ছড়াচ্ছে। 

ঘুম থেকে উঠে এক কাপ চা পান না করলে যেন ঘুমের ঘোরটাই কাটতে চায় না! চা পান করতে করতে মনে হলো যে টি ব্যাগ তো আমাদের মারাত্মক ক্ষতি করছে।তাই মূলত আজকের পোস্ট টা দেয়া।

টি ব্যাগ(Tea Bag)

চা প্রস্তুতিকে আর সহজ করে তুলতে ১৯০৯ সালে টমাস সুলিভ্যান টি-ব্যাগের প্রবর্তন করেন।

টি-ব্যাগে যত সমস্যা 

সকাল-বিকেল কাজের ফাঁকে এক কাপ চায়ে গলা না ভেজালে যেন শরীরটা চাঙ্গা হতে চায়না। চা ছাঁকার ঝামেলা না থাকায় টি ব্যাগ সহজেই ব্যবহার করা যায়। এজন্য টি ব্যাগ গরম পানিতে ডুবিয়ে চা পান করতে পছন্দ অনেকের? দিন দিন খোলা পাতি ব্যবহারের পরিবর্তে টি ব্যাগ ব্যবহারের মাত্রাও বাড়ছে।

প্লাস্টিকের তৈরি টি ব্যাগগুলি যথেষ্ট ক্ষতিকারক। এক পরিক্ষায় দেখা যায় যে,টি ব্যাগগুলি থেকে গরম চায়ের মধ্যে অসংখ্য প্লাস্টিকের কণা প্রবেশ করে এবং তাতে যোগ হয় ১১০০ কোটি প্লাস্টিক কণা।
টি-ব্যাগের মাধ্যমে শরীরে ঢুকছে কোটি কোটি বিষাক্ত প্লাস্টিক কণা এক সমীক্ষায় এমনটাই দাবি করা হচ্ছে।

চলতি মাসেই ‘এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি’ নামের মার্কিন পত্রিকায় প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে এই তথ্য সামনে এসেছে।

টি ব্যাগে স্টেপল পিন ব্যবহার নিষিদ্ধ করল খাদ্য নিরাপত্তা নিয়ন্ত্রক সংস্থা FSSAI ৷ ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে কোনধরনের টি-ব্যাগেই আর স্টেপল পিন ব্যবহার করা যাবে না ৷

হার্নান্দেজ, টুফেনকজি এবং ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁদের সহ গবেষকরা ফুটন্ত জলে চার ধরণের প্লাস্টিকের টি ব্যাগ ডুবিয়ে পরীক্ষা করেন এবং দেখতে পান যে একটি ব্যাগই ১১ বিলিয়ন মাইক্রোপ্লাস্টিক এবং ৩ বিলিয়ন ন্যানোপ্লাস্টিক কণা ছড়াচ্ছে।সাধারণ চোখে ওই দূষণ দেখতে সক্ষম হবেন না; গবেষকরা একটি বৈদ্যুতিন মাইক্রোস্কোপ ব্যবহার করে দেখতে পারেন এটি।

টি ব্যাগ তৈরি

টি ব্যাগ তৈরিতে ব্যবহার করা হয় এপিক্লোরোহাইড্রিন নামে একটি কার্সিনোজেনিক উপাদান। গরম জলের সংস্পর্শে এলেই বুদবুদ তৈরি হতে থাকে। বিশেষজ্ঞদের সতর্কবাণী, শরীরে কার্সিনোজেনিক উপাদান বাড়তে থাকলে ক্যানসারের আশঙ্কা বাড়তে থাকে।TEA BAG

টি ব্যাগের উপকারিতা

টি ব্যাগের উপকারিতা আছে কিন্তু সেই টি ব্যাগ হতে হবে প্লাস্টিক ছাড়া এবং পিন ব্যবহার না করা। তাহলেই আমাদের কোন ক্ষতি হবে না এবং শরীরের জন্য খারাপ প্রভাব পরবে না।

টি-ব্যাগের অপকারিতা

১।বাজারে যেসব টি-ব্যাগ পাওয়া যায়, তার বেশিরভাগই নাইলন অথবা পিভিসি দিয়ে তৈরি হয়। এই উপাদানগুলি গরম পানির সঙ্গে মেশা মাত্র বিরূপ প্রক্রিয়া হতে শুরু করে। ফলে এমন চা পানে শরীরের মারাত্মক ক্ষতি হওয়ার আশংকা থাকে।

২। চায়ের ফ্লেভার বাড়াতে অনেক ক্ষেত্রেই টি-ব্যাগে নানাবিধ প্রস্টিসাইড ব্যবহার করা হয়, যা শরীরের জন্য ক্ষতিকর।

৩। কাগজ দিয়ে টি-ব্যাগ বানানোর সময় এপিকোরোহাইডিন নামে একটি উপাদান ব্যবহার করা হয়। এটি শরীরে বেশি মাত্রায় প্রবেশ করলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা একেবারে কমে যায় এবং এপিকোরোহাইডিন রোগ বাড়াতে সাহায্য করে।

আমেরিকান কেমিক্যাল সোসাইটি জার্নাল এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজিতে প্রকাশিত হয়েছিল যে, বেশ কিছু চা বিক্রয়কারীরা কাগজের টি ব্যাগের পরিবর্তে প্লাস্টিকের টি ব্যাগগুলিতে চা বিক্রি করছেন। এ বিষয়ে জনসাধারণকেই সচেতন হতে হবে।

কিল্ক করে দেখে নিতে পারেন, চায়ের ইতিহাস ও টি ব্যাগের একাল সেকাল । 

পরীক্ষায় দেখা যায়, ৯৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের গরম জলে ৫ মিনিট টি ব্যাগ ডুবিয়ে রাখলে গোটা চা-টাই প্লাস্টিকের পার্টিক্যালে ভরে যাচ্ছে।রোজ এক কাপ করে প্লাস্টিকের টি ব্যাগ ডোবানো চা খেলে, সপ্তাহে ৫ গ্রাম প্লাস্টিক পেটে ঢুকছে।

এই টি ব্যাগে ব্যবহৃত প্লাস্টিক গ্রহণের ফলে স্বাস্থ্যের প্রভাবগুলি এখনও যদিও অজানা তবু এটা নিশ্চিত যে এগুলি যথেষ্ট ক্ষতিকারক। যদিও বিশ্বজুড়ে মানুষ অজান্তেই প্রচুর পরিমাণে টি ব্যাগ ব্যবহার করে চা পান করেন।

গবেষকদের পরামর্শ, দোকান থেকে টি ব্যাগ কেনার আগে যাচাই করে নিন সেগুলি প্লাস্টিকের তৈরি নাকি কাগজের তৈরি! কাগজের তৈরি হলে তবেই সেই টি ব্যাগ কিনুন, নিজের স্বাস্থ্যের সুরক্ষার জন্য প্লাস্টিক বর্জন করুন।

পোস্টটি থেকে যদি উপকৃত মনে হোন তাহলে Factarticle এর সঙ্গেই থাকবেন এবং সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিয়ে সচেতন করে দিবেন।

Www.Factarticle.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *