All Exam

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের সর্বশেষ এসএসসি প্রস্তুতি ২০২০ –জীববিজ্ঞান পর্ব-২

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের শেষ মুহূর্তের এসএসসি প্রস্তুতি ২০২০ – জীববিজ্ঞান

এসএসসি পরীক্ষার্থীরা শেষ মুহূর্তের এসএসসি প্রস্তুতি ২০২০ ( SSC Preparation 2020 ) আপনাদের জন্যই আজকের আমাদের এই কনটেন্টা। আমরা চাই, আপনারা ভালোভাবে এসএসসি পরীক্ষা দেন। আপনারাই আমাদের দেশের ভবিষ্যৎ,আপনারাই এ দেশকে উন্নতির শিখরে তুলবেন।

আমরা আজকে- জীববিজ্ঞান  অষ্টম অধ্যায় : মানব রেচন ও নবম অধ্যায় : দৃঢ়তা প্রদান  চলন শেষ এবং নবম অধ্যায় : দৃঢ়তা প্রদান ও চলন, শেষ এসএসসি প্রস্তুতি ২০২০ হিসেবে দেখাবো। শেষ প্রস্তুতি হিসেবে লিখেছেন- সুনির্মল চন্দ্র বসু স্যার।

আমরা এই শেষ প্রস্তুতি শুধু শেয়ার করছি এতে যদি কারও উপকারে আসে তাহলে আমরা গর্বিত।

আমার কথা- আপনারা কখনোই অসৎভাবে এসএসসির পরীক্ষার রেজাল্ট ভালো করার চেষ্টা করবেন না এতে আপ্নারই ক্ষতি। অনেক অসৎলোক আপনাকে প্রলোভন দেখাবে যে, এসএসসির প্রশ্নপত্র এর বিষয়ে।

কিন্তু সেখানে দেখা যাবে,প্রশ্ন তো দুরের কথা- প্রথমে টাকা হাতিয়ে নিয়ে,প্রলোভন দেখিয়ে আপনার শেষ প্রস্তুতিকে নষ্ট করে দিবে ফলে, আপনার এসএসসি পরীক্ষা খারাপ হওয়ার সম্ভবনা থাকবে। সুতরাং আপনার কখনোই অসৎভাবে কিছু করার চেষ্টা করবেন না। প্লীজ কখনোই না।

শেষ সময়ের এসএসসি প্রস্তুতি যেভাবে নিবেন-

  • এসএসসি পরীক্ষার্থীরা পড়ালেখার জন্য অনেকেই ‘দৈনন্দিন রুটিন’ করে নেন। রুটিন করার সময় খুব ভালোমতো খেয়াল রাখবেন একটি কথা—আপনি কত ঘণ্টা পড়ালেখা করছেন, তার চেয়েও বড় কথা হলো আপনি ‘কীভাবে’ পড়ালেখা করছেন।
  • এসএসসি পরীক্ষার্থ আপনাকে অনেক বেশি কৌশলী হতে হবে। সারা দিন শুধু বই নিয়ে বসে থাকলেই যে পড়ালেখা ভালো হবে, এমন কিন্তু কোনো কথা নেই। রুটিনে বিশ্রামের জন্যও যথেষ্ট সুযোগ রাখতেই হবে।
  • প্রতিদিন ১২ থেকে ১৪ ঘণ্টা করে পড়াশোনা করলেই যে এসএসসি তে ভালো রেজাল্ট করবেন এমনটা না। আপনি প্রতিদিন কত ঘণ্টা করে পড়াশোনা করবেন, তা নির্ভর করবে সম্পূর্ণভাবে আপনার ব্যক্তিগত সামর্থ্যের ওপর। আপনি যদি অনুভব করেন, সাত থেকে ঘণ্টা পড়ালেখা করে খুব ভালোভাবে প্রস্তুতি নিতে পারছেন, তাহলে আপনার জন্য সেটাই যথেষ্ট।
  • অনেকেই একই বিষয়ের ওপর অনেকগুলো বই কিনেছেন, কিন্তু দিন শেষে কোনোটাই ঠিকমতো রপ্ত করতে পারলেন না। এতে করে লাভের চেয়ে ক্ষতির শঙ্কাই কিন্তু বেশি থাকে। কোনো বিষয়ের ওপর মানসম্মত একটি বা দুটি বইই যথেষ্ট।
  • এসএসসি পরীক্ষার্থীরা আপনাদের সময় খুবই কম, পড়ার টেবিলে আজ থেকে ‘দিন গণনা’ শুরু করতে পারেন। যেমন ধরুন, আপনার কাঙ্ক্ষিত এসএসসি পরীক্ষার ২০ দিন সময় বাকি আছে।
  • একটি সাদা কাগজে সিরিয়াল মতো উল্টো দিক থেকে ২০ থেকে ১ পর্যন্ত লিখে টাঙিয়ে রাখুন এবং প্রতিদিন একটি করে দিন কাটুন। এক দিন করে যখন কমতে থাকবে, আপনি আরও বেশি করে পড়ার তাগিদ অনুভব করবেন। দেখবেন, এই কাজ আপনাকে পড়ালেখার দিকে সব সময় আকর্ষিত করবে।

এসএসসি প্রস্তুতি ২০২০

সুনির্মল চন্দ্র বসু সহকারী অধ্যাপক, মুজিব ডিগ্রি কলেজ, কাদেরনগর, সখীপুর, টাঙ্গাইল

জীববিজ্ঞান বিষয়ের ‘অষ্টম অধ্যায় : মানব রেচন’ থেকে ১৮টি বহুনির্বাচনী প্রশ্ন ও উত্তর নিয়ে আলোচনা করা হলো।

জীববিজ্ঞান অষ্টম অধ্যায় : মানব রেচন

১. রেচনতন্ত্রের কাজ কী?
ক) শরীর বৃত্তীয় ভারসাম্য রক্ষা করা
খ) শরীরকে দৃঢ়তা প্রদান
গ) স্নায়বিক উত্তেজনা প্রশমন করা
ঘ) বংশগতীয় বৈশিষ্ট্য প্রকাশ করা

২. মানবদেহে নেফ্রন সংখ্যা কত?
ক) ১০ লক্ষ খ) ২০ লক্ষ
গ) ৩০ লক্ষ ঘ) ৪০ লক্ষ

৩. বৃক্কের নেফ্রনে ছাঁকনির মতো পর্দাটি কী?
ক) গ্লোমেরুলাস খ) রেনাল করপাসল
গ) বোম্যান্স ক্যাপসুল ঘ) হিলোম

৪. মানুষের বৃক্কের রঙ কোনটি?
ক) লাল খ) কালো
গ) লালচে ঘ) কালচে লাল

৫. মেডুলায় রেনাল পিরামিডের সংখ্যা কত?
ক) ৮-১২টি খ) ১৪-১৬টি
গ) ৫-৭টি ঘ) ১৭-২১টি

৬. বৃক্ক নালিকার নিকটস্থ কোনটি?
ক) প্রোক্সিমাল খ) হেনলির লুপ
গ) রেনাল করপাসল ঘ) পেলভিস

৭. মূত্রথলির নিচের দিকে থাকে
ক) মূত্রনালি খ) ছিদ্র
গ) মলদ্বার ঘ) পেলভিস

৮. বৃক্কে প্রবেশকারী রক্তবাহী নালিটির নিয়ন্ত্রক কোনটি?
ক) রেচনতন্ত্র খ) স্নায়ুতন্ত্র
গ) শ্বসনতন্ত্র ঘ) রক্ত সংবহনতন্ত্র

৯. বৃক্কে পাথর হলে কোন উপসর্গ দেখা যায়?
ক) চুল পড়ে যায়
খ) শরীরে ঘা হয়
গ) কোমরে ব্যথা হয়
ঘ) চোখে ঝাপসা লাগে

১০. মানুষের সব সময় কয়টি কিডনি কার্যকর থাকে?
ক) ১টি খ) ২টি গ) ৩টি ঘ) ৪টি

দেখুন-  এসএসসি পরীক্ষার্থীদের শেষ মুহূর্তের এসএসসি প্রস্তুতি – জীববিজ্ঞান ২০২০ পর্ব- ১ 

১১. বৃক্কে রক্ত সরবরাহ নিয়ন্ত্রিত হয়Ñ
র. সংবেদী স্নায়ুতন্ত্রের সাহায্যে
রর. পার্শ্ব-সংবেদী স্নায়ুতন্ত্রের সাহায্যে
ররর. সরাসরি

নিচের কোনটি সঠিক?
ক) র ও রর খ) রর ও ররর গ) ররর ঘ) রর

১২. মূত্রের স্বাভাবিক প্রবাহকে বৃদ্ধি করেÑ
র. ডাই ইউরেটিকস নামক পদার্থ
রর. পানি, লবণাক্ত পানি, চা, কফি প্রভৃতি
ররর. গ্লুকোজ

নিচের কোনটি সঠিক?
ক) র, রর খ) রর, ররর
গ) র ও ররর ঘ) র, রর ও ররর

১৩. বৃক্কে পাথর অপসারণের চিকিৎসা হলোÑ
র. বৃক্কে অস্ত্রোপচার করা
রর. আল্ট্রাসনিক লিথট্রিপসি করা
ররর. পানি গ্রহণ ও ওষুধ সেবন করা

নিচের কোনটি সঠিক?
ক) র, রর খ) রর, ররর
গ) র, রর ও ররর ঘ) র ও ররর

১৪. ডায়ালাইসিস প্রক্রিয়াটিতেÑ
র. মেশিনের ডায়ালাইসিস টিউবটির এক প্রান্ত রোগীর হাতের কব্জির ধমনির সাথে সংযোজন করা হয়
রর. মেশিনের ডায়ালাইসিস টিউবের অন্য প্রান্ত একই হাতের কব্জির শিরার সাথে যুক্ত করা হয়
ররর. ডায়ালাইসিস মেশিনের টিউবটি অন্য মেশিনের সাথে যুক্ত থাকে

নিচের কোনটি সঠিক?
ক) র, রর খ) রর, ররর গ) র ও ররর ঘ) র, রর ও ররর

নিচের তথ্যের আলোকে ১৫ ও ১৬ নং প্রশ্নের উত্তর দাও।
জমিলা খাতুন বেশ কিছু দিন থেকে শারীরিকভাবে অসুস্থ। হাসপাতালে ভর্তি হলে ডাক্তার সাহেব পরীক্ষা করে দেখলেন জমিলা খাতুনের দু’টি বৃক্কই বিকল হয়ে গেছে।

১৫. জমিলা খাতুনের কোন অঙ্গটি বিকল হয়েছে?
ক) হৃৎপিণ্ড খ) বৃক্ক গ) ফুসফুস ঘ) যকৃৎ

দেখুন- Ssc English Preparation 2020

১৬. জমিলা খাতুনের সুস্থ হওয়ার উপায়Ñ
র. ডায়ালাইসিস প্রক্রিয়ায় বৃক্ক সচল করা
রর. বৃক্ক প্রতিস্থাপন করা
ররর. ফুসফুস প্রতিস্থাপন করা

নিচের কোনটি সঠিক?
ক) র, রর খ) রর, ররর গ) র ও ররর ঘ) র, রর ও ররর

১৭. ইউরিয়া কোথায় তৈরি হয়?
ক. বৃক্কে খ. যকৃতে
গ. দেহকোষে ঘ. রেনাল ধমনিতে

১৮. বৃক্কে পাথর হওয়ার সম্ভাবনা কমেÑ
র. শারীরিক ওজন হ্রাস পেলে
রর. কম পানি পান করলে
ররর. স্বল্প পরিমাণ আমিষ খেলে

  • নিচের কোনটি সঠিক?
  • ক) র, রর খ) র, ররর গ) রর ও ররর ঘ) র, রর ও ররর

উত্তর : ১.ক ২.খ ৩.ক ৪.গ ৫.ক ৬.ক ৭.খ ৮.খ ৯.গ ১০.ক ১১.ক ১২.ক ১৩.গ ১৪.ক ১৫.খ ১৬.ক ১৭.ক ১৮.খ।

জীববিজ্ঞান নবম অধ্যায়- দৃঢ়তা প্রদান ও চলন

সুনির্মল চন্দ্র বসু সহকারী অধ্যাপক, মুজিব ডিগ্রি কলেজ, কাদেরনগর, সখীপুর, টাঙ্গাইল

জীববিজ্ঞান বিষয়ের ‘নবম অধ্যায় : দৃঢ়তা প্রদান ও চলন’ থেকে ১৭টি বহুনির্বাচনী প্রশ্ন ও উত্তর নিয়ে আলোচনা করা হলো-

১. আমাদের দেহের কাঠামো হলো-
ক) হৃৎপিণ্ড খ) কঙ্কাল
গ) ফুসফুস ঘ) অন্ত্র

২. অস্থি ও তরুণাস্থি, পেশি, পেশিবন্ধনী ও অস্থিবন্ধনী নিয়ে গঠিত হয়Ñ
ক) অস্থিসন্ধি খ) পেশিতন্ত্র
গ) স্নায়ুতন্ত্র ঘ) কঙ্কালতন্ত্র

৩. অস্থির মাতৃকা কেমন?
ক) নরম ও ভঙ্গুর খ) শক্ত ও ভঙ্গুর
গ) শক্ত ঘ) ভঙ্গুর

৪. কন্ড্রিন-এর বর্ণ কী রূপ?
ক) হালকা নীল খ) নীল
গ) সবুজ ঘ) গাঢ় বাদামি

৫. কোন অস্থিসন্ধিগুলো অনড়?
ক) ঈষৎ সচল খ) পূর্ণ সচল
গ) কব্জি সন্ধি ঘ) নিশ্চল

৬. ঐচ্ছিক পেশি কিসের দ্বারা অস্থিকে আটকে রাখে?
ক) কন্ড্রিন খ) এক্সন
গ) অস্ট্রিন ঘ) টেনডন

৭. টেনডন বেশ

ক) নরম খ) স্থিতিস্থাপক
গ) ভঙ্গুর ঘ) শক্ত

৮. অস্থির বৃদ্ধিতে প্রয়োজন
ক) ভিটামিন ও ফসফরাসসমৃদ্ধ খাদ্য
খ) ক্যালসিয়াম ও আয়োডিনসমৃদ্ধ খাদ্য
গ) আমিষ ও খনিজ লবণসমৃদ্ধ খাদ্য
ঘ) ভিটামিন ও ক্যালসিয়ামসমৃদ্ধ খাদ্য

৯. স্টেরয়েডযুক্ত ওষুধ সেবনে বয়স্ক পুরুষদের কোন রোগটি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি?
ক) অস্টিওপোরেসিস খ) আর্থ্রাইটিস
গ) জন্ডিস ঘ) উদরাময়

১০. আর্থ্রাইটিস প্রতিকারে করণীয় কী?
ক) নিয়মিত ব্যায়াম করা
খ) ভারী কাজ থেকে বিরত থাকা
গ) আঁশযুক্ত খাদ্য গ্রহণ করা
ঘ) ভারী কাজ করা

১১. জীবিত অস্থিকোষ গঠিত হয়
র. ৪০% জৈব পদার্থ নিয়ে
রর. ৩০-৪০% পানি নিয়ে
ররর. ৬০% অজৈব যৌগ পদার্থ নিয়ে

নিচের কোনটি সঠিক?
ক) রর খ) র ও রর গ) র ও ররর ঘ) রর ও ররর

১২. পেশিতন্ত্র গঠিত হয়
র. হৃদপেশি নিয়ে
রর. ঐচ্ছিক কঙ্কাল পেশি নিয়ে ও
ররর. রক্তনালী গাত্রে ঐচ্ছিক পেশি নিয়ে

নিচের কোনটি সঠিক?
ক) র ও রর খ) র ও ররর
গ) রর ও ররর ঘ) ররর

১৩. অস্টিওপোরেসিস রোগ প্রতিরোধে করণীয়Ñ
র. ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ‘ডি’সমৃদ্ধ খাদ্য গ্রহণ করা
রর. নিয়মিত ব্যায়াম করা
ররর. সুষম আঁশযুক্ত খাবার গ্রহণ করা

নিচের কোনটি সঠিক?
ক) রর ও ররর খ) র, রর ও ররর
গ) র ও ররর ঘ) র ও রর

 এসএসসি প্রস্তুতি ২০২০

নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ো এবং ১৪ ও ১৫ নং প্রশ্নের উত্তর দাও।

বিজ্ঞান ক্লাসে পুলক জানতে পারল প্রকৃতপক্ষে অস্থিতন্ত্র ও বিভিন্ন প্রকার পেশির সম্মিলিত কার্যক্রমের ফলেই দেহ নড়াচড়া ও কাজ করতে পারে। পাশাপাশি সে পেশির কার্যক্রম সম্পর্কেও অবগত হলো।

১৪. ঐচ্ছিক পেশি কিসের দ্বারা অস্থিকে আটকে রাখে?
ক) টেনডন খ) লিগামেন্ট
গ) বাইকাসপিড ঘ) ট্রাইকাসপিড

১৫. কনুই বাঁকা করলে ঐচ্ছিক পেশি যেভাবে কাজ করেÑ
র. বাইসেপস পেশি সঙ্কুচিত হয়
রর. ট্রাইসেপস পেশি শ্লথ হয়ে লম্বা হয়
ররর. ট্রাইসেপস পেশি সঙ্কুচিত হয়

নিচের কোনটি সঠিক?
ক) র ও ররর খ) রর ও ররর
গ) র ও রর ঘ) র, রর ও ররর

১৬. কোনটি অস্থির বৈশিষ্ট্য?
ক) স্থিতিস্তাপক খ) নরম
গ) দৃঢ় ঘ) তন্তুময়

১৭. টেনডনের টিস্যু হচ্ছেÑ
র. সাদা বর্ণের ও উজ্জ্বল
রর. শাখাবিহীন ও তরঙ্গিত
ররর. তন্তুময় ও গুচ্ছাকার

নিচের কোনটি সঠিক?
ক) র ও রর খ) র ও ররর
গ) রর ও ররর ঘ) র, রর ও ররর

উত্তর : ১.খ ২.ঘ ৩.খ ৪.ক ৫.ঘ ৬.ঘ ৭.ঘ ৮.ঘ ৯.ক ১০.খ ১১.গ ১২.ক ১৩.খ ১৪.ক ১৫.গ. ১৬.গ ১৭.ঘ।

জীববিজ্ঞান নবম অধ্যায় : দৃঢ়তা প্রদান ও চলন

সুনির্মল চন্দ্র বসু সহকারী অধ্যাপক, সরকারি মুজিব ডিগ্রি কলেজ, কাদেরনগর, সখীপুর, টাঙ্গাইল

জীববিজ্ঞান বিষয়ের ‘নবম অধ্যায় : দৃঢ়তা প্রদান ও চলন’ থেকে একটি নমুনা সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর নিয়ে আলোচনা করা হলো।

নিচের চিত্রটি লক্ষ করে প্রশ্নের উত্তর দাও।

ক. টেনডন কী? ১
খ অস্টিওপোরেসিস বলতে কী বুঝায়? ২
গ. দেহের ঢ অংশটির কোষের গঠন ভিন্ন কেন? ব্যাখ্যা করো। ৩
ঘ. ী ও ণ উভয়ের সমন্বিত কার্যক্রম কিভাবে অঙ্গ সঞ্চালনে ভূমিকা রাখে? বিশ্লেষণ করো। ৪

উত্তর : (ক) মাংসপেশির প্রান্তভাগ রজ্জুর মতো শক্ত হয়ে অস্থিগাত্রের সাথে সংযুক্ত হয়। এই শক্ত প্রান্তকে টেনডন বলে।

(খ) অস্টিওপোরেসিস একটি ক্যালসিয়াম অভাবজনিত রোগ। বয়স্ক পুরুষ ও মহিলাদের এ রোগ হয়। অস্থি ভঙ্গুর হয়ে যায়। পেশির শক্তি কমতে থাকে। অস্থিতে ব্যথা হয়। এ জন্য ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাদ্য গ্রহণ করতে হবে।

(গ) চিত্রের ঢ চিহ্নিত অংশটি স্পঞ্জি অস্থি। অস্থি যোজককলার রূপান্তরিত রূপ, যা মানবদেহের কঙ্কালকে গঠন করে। এটি দেহের সর্বাপেক্ষা দৃঢ় কলা। অস্থির মাতৃকা বা অন্তঃকোষীয় পদার্থ এক প্রকার জৈব পদার্থ দ্বারা গঠিত। এর মাতৃকা শক্ত ও ভঙ্গুর। মাতৃকার মধ্যে অস্থিকোষগুলো ছড়ানো থাকে। এ অস্থিকোষকে অস্টিওব্লাস্ট বলে।

এসব কোষ শাখা-প্রশাখাযুক্ত, দেখতে অনেকটা মাকড়সার মতো। এসব অস্থি মূলত ফসফরাস, সোডিয়াম, পটাশিয়াম ও ক্যালসিয়ামের বিভিন্ন যৌগ দিয়ে তৈরি। এ ছাড়া অস্থিতে প্রায় ৪০-৫০ ভাগ পানি থাকে।

জীবিত অস্থিকোষে ৪০% জৈব এবং ৬০% অজৈব যৌগ পদার্থ নিয়ে গঠিত। অস্থি বৃদ্ধির জন্য প্রচুর ভিটামিন ডি ও ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার প্রয়োজন। এসব খাবারের অভাবে অস্থির স্বাভাবিক বৃদ্ধি ব্যাহত হয়। কাজেই বলা যায়, অস্থিকোষের গঠন দেহের অন্য যেকোনো কোষ থেকে ভিন্ন।

(ঘ) চিত্রে ঢ দ্বারা অস্থি এবং ণ দ্বারা অস্থিসন্ধিকে চিহ্নিত করা হয়েছে। দু’টি অস্থির সংযোগস্থলকে অস্থিসন্ধি বলে। এটি এক রকম স্থিতিস্থাপক রজ্জুর মতো বন্ধনী দ্বারা দৃঢ়ভাবে আটকানো থাকে; ফলে অস্থিগুলো সহজে সন্ধিস্থল থেকে বিচ্যুত হতে পারে না।

একটি অস্থিসন্ধিতে দু’টি মাত্র অস্থির বহির্ভাগে এসে মিলিত হয়ে একটি সরল সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি গঠন করে। এটিতে সাইনোভিয়াল রস ও তরুণাস্থি থাকায় অস্থিতে অস্থিতে ঘর্ষণ ও তৎজনিত ক্ষয় হ্রাস পায় ও অস্থিসন্ধির নড়াচড়া করায় কম শক্তি ব্যয় হয়।

অন্য দিকে অস্থিসন্ধির অস্থিগুলো টেনডন নামক দৃঢ় ও স্থিতিস্থাপকতা গঠন দ্বারা ঐচ্ছিক পেশির দ্বারা আটকে থাকে। স্নায়বিক উত্তেজনা পেশির মধ্যে প্রবাহিত হলে পেশির সঙ্কোচন ও প্রসারণ ঘটে। ফলে সংশ্লিষ্ট অস্থিগুলো উদ্দীপনা অনুযায়ী বিভিন্ন দিকে ওঠানামা করে।

উপরি উক্ত বৈশিষ্ট্যের কারণেই অস্থিসন্ধি ও অস্থির সমন্বিত কার্যক্রম দেহের অঙ্গ সঞ্চালনে ভূমিকা রাখে।

এসএসসি প্রস্তুতি ২০২০ পোস্টটি পরে উপকৃত হলে এসএসসি প্রস্তুতি যারা নিচ্ছেন তাদের সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিবেন এবং Factarticle এর সঙ্গেই থাকবেন।

Credit Dailynayadiganta

সৌজন্যেঃ Factarticle.com

Comments

Tags
Back to top button
Close
Close