Technology

আলাদীন আর যাদুর জীনি যখন_গুগল

Aladdin and magic genie when Google
সারা দুনিয়া জুড়ে কোটি কোটি মানুষ ব্যবহার করছেন এই গুগল, এবং অনেকের কাছেই এটি তাদের ইন্টারনেট কার্যক্রমে এক গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে উঠেছে।গুগল অবশ্য এখন আর শুধুই একটি সার্চ ইঞ্জিন নয়, এক বিশাল প্রযুক্তি কোম্পানি।

বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন কাজে আমরা গুগলকে ব্যাবহার করি। গুগল একটা বিলিয়ন ডলারের কোম্পানি। গুগল প্রতিনিয়ত তাদের কর্মপরিধি বাড়িয়েই চলেছে। যার অনেকগুলো আমরা প্রচুর ব্যবহার করি। যেমন ধরুন – গুগল প্লেস্টোর, মেইল সার্ভিস, ম্যাপ, ড্রাইভ, স্কলার ইত্যাদি।গুগলের মাধ্যমে আপনি বিস্ময়কর কিছু জিনিস উপভোগ করতে পারবেন। যা হয়তো বাস্তবে অনেকেরই সুযোগ আসবে না, তা গুগলে আপনাকে উপভোগ করার সুযোগ দিচ্ছে। নিচে উল্লেখ করা হলোঃ

* গুগল স্কাই ( Google Sky)

স্ক্যআপনি কি মহাকাশের অসীমতায় হারিয়ে যেতে চান? টেলিস্কোপ না থাকলেও আপনার টেলিস্কোপের বিকল্প হতে পারে গুগল স্কাই। বিভিন্ন গ্রহ, নক্ষত্র, কন্সটেলেশন, গ্যালাক্সি ইত্যাদি আপনার মনোরঞ্জনের সবকিছুই পাবেন। আপনার যদি জ্যোতির্বিজ্ঞানের উপর একেবারেই ধারণা না থাকে তা গুগল শেখার সুযোগ দিচ্ছে ।

 

* গুগল মুন ( Google Moon)

moonচাঁদের আলোয় সন্তুষ্ট না হলে আপনার চাঁদের বিভিন্ন অঞ্চল ঘুরে দেখার ব্যবস্থা রেখেছে গুগল। গুগল মুন থেকে আপনি চাঁদের অনেকটা ঘুরে দেখতে পারেন। পড়তে পারেন চাঁদে এখনো পর্যন্ত পাঠানো সকল নভোচারী ও নভোযানের উপর খুঁটিনাটি তথ্য। এমনকি আ্যপলো ১১ এর নভোচারী নীল আর্মস্ট্রং ও বাজ অলড্রিন যেখানে নেমেছিলেন ।

 

*. গুগল মার্স (Google Mars)

mars

দেখতে পারেন সৌরজগতের সবচেয়ে বড় আগ্নেয়গিরি অলিম্পাস মনস’কে যার ব্যাপ্তি প্রায় ৬৪৮ কিলোমিটার। কিংবা যে জায়গায় পানি পাওয়া গেছে সেখানটায়ও ঘুরে দেখতে পারেন। আজ পর্যন্ত আবিষ্কার হওয়া মঙ্গলের সকল অঞ্চল, গিরিখাত, আগ্নেয়গিরি ইত্যাদির সর্বশেষ তথ্য পাবেন গুগলে। একেবারে মার্কিং পয়েন্ট সহকারে দেয়া থাকে বলে আপনার ভুল তথ্য পাবার সম্ভাবনা কম।

 

*. গুগল ডেজার্ট (Google Desert)

google

পৃথিবীর বাইরে ঘুরে আসতে পারেন মরুভূমি থেকে। সবচেয়ে চমকপ্রদ ব্যাপার হলো এই মরুভূমির ম্যাপিং বা ছবি তোলার কাজগুলো করা হয়েছে উটের সাহায্যে।

 

 

 

* গুগল ক্লাসরুম (Google Classroom)

gool

শিক্ষা বিষয়ক। অতটা জনপ্রিয় নয়, তবে কার্যকরী। কনট্রিবিউট অথবা শেখা দুটোরই সুযোগ আছে। তবে অবশ্যই কিছু শিখতে চাইলে বিভিন্ন কোর্সের কোড নম্বর জানতে হয়।

 

 

* গুগল স্লাইডস ( Google Slides)

google

অনলাইনেই তৈরি করতে পারেন প্রেজেন্টেশনের স্লাইডগুলো। যখন খুশি। বেশ সোজা ও দ্রুত। এছাড়াও আপনার গুগল ড্রাইভে সেভ করে রাখা প্রেজেন্টেশন স্লাইডগুলিও এখানে এডিট করতে পারবেন।

 

 

* ফায়ারবেস (Firebase)

gool

মূলত প্রোগ্রামারদের জন্য। ফায়ারবেস সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় তার অত্যাধুনিক পুশ নোটিফিকেশন টেকনোলজির কারণে। যারা অ্যান্ডয়েডে বিভিন্ন রকমের অ্যাপ ব্যবহার করেন তাদের পুশ নোটিফিকেশন কি সেটা জানারই কথা

BY:factarticle.com

Comments

Tags
Back to top button
Close
Close