Prophet Muhammad
Amazing News

আধারের জ্যোতি মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর জীবন কাহিনী

Aadhar Jyoti Prophet Muhammad (PBUH)

আধারের জ্যোতি মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)

আধার মূলত অন্ধকারকে বোঝায়। কিন্তু এই আধারকে রাত গভীররের অন্ধকারকে বোঝানো হয়নি। এখানে অন্ধকার বলতে বোঝানো হয়েছে যে, অন্যায়,অত্যাচার,অবিচার,অনিয়মকে।

চারদিকে যেন অন্ধকার। কোন জায়গায় শান্তির নিশানা নেই।চারদিকে হত্যা,কাটাকাটি,মারামারি ও বিভিন্ন জঘন্যতম কাজ চলতে শুরু হলো যখন।তখন এসব আধার দূর করার জন্য পৃথিবীতে আসলেন আধারের জ্যোতি মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)।

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)ছিলেন সর্বশেষ ও সর্বশ্রেষ্ঠ নবি ও রাসুল। যেসব মহাপুরুষের আগমনের ফলে পৃথিবী আজকে ধন্য হয়েছে তিনি তাদের মধ্যে সেরা একজন। যার সাথে কারো তুলনা হয় না। অনেক মহাপুরুষের জীবন প্রকৃত তথ্যের চেয়ে কাল্পনিক নানা তথ্যে ভরা।কিন্তু রাসুল (সাঃ) এর জীবনে যত তথ্য পাওয়া যায় সবই ঐতিহাসিক সত্য হিসেবে স্বীকৃত।

আল্লাহ্‌ এর নবী হওয়া সত্ত্বেও মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)ছিলেন সাধারণ মানুষের মতো। তাই তিনি মানবজাতির গৌরব।

প্রত্যেকটা নৈতিক গুনাবলি হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর জীবন পর্যালোচনা করলে দেখা যায় যে,তিনি নিজে তার জীবনে নৈতিক গুনাবলির সমাবেশ ঘটিয়েছেন ও অন্যকে শিখিয়েছেন এবং বুঝিয়েছেন।

সাম্যের বানী ইসলাম প্রচার করায় মক্কা ও তায়েফের মানুষ তাকে অত্যাচারে জর্জরিত করেছিলেন।এই সময় তিনি তাদের উপর অভিশাপ তো দূরে থাক বরং তাদের উদ্দেশ্যে বলেছিলেন, এদের জ্ঞান দাও প্রভু,এদের ক্ষমা কর।

তাহলে একবার ভেবে দেখুন তিনি কেমন মানুষ ছিলেন?

শুধু তাই নয়,তিনি ছিলেন একজন জ্ঞানসাধক, নারীর মর্যাদা প্রতিষ্ঠা করেছেন এবং তিনি কুসংস্কারে কোনোদিন প্রশ্রয় দেন নি।
তৎকালীন আরবে নারীদের কোন মানুষওই সম্মান দিত না।তিনি একমাত্র নারীদের সম্পর্কে ঘোষণা দিয়েছিলেন যে,মায়ের পায়ের নিয়ে সন্তানের বেহেস্থ।

এভাবে তার এসব মহৎ কাজের জন্য ৬৩ বছরে ক্ষুদ্র পরিসরে আরবের সকল আধার দূর করেছিলেন।

তাই আমরা সকেলেই তাকে মানার চেষ্টা করবো,তাকে অনুকরণ করে আমরা আমাদের জীবন সুন্দর করার চেষ্টা করবো।ইনশাআল্লাহ্‌।

দেখে নিতে পারেন পবিত্র কুরআন নিয়ে মহাকাশে গেলেন-কিল্ক করুন…

 

পোস্টটি ভালো লাগলে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিবেন এবং Factarticle.com এর সঙ্গেই থাকবেন।

BY:Factarticle.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *